বাসর রাতে যে ১০টি প্রশ্ন কখনও ভুলবেন না!

বিয়ে হলো একটি সামাজিক ব’ন্ধন বা বৈ’ধ চুক্তি যার মাধ্যমে দু’জন মানুষের মধ্যে দাম্পত্য স’স্পর্ক স্থাপিত হয়। প্রত্যেক নারী-পুরুষের জীবনেই বিয়ের রাত আসে। যে রাতে মধুময় হয়ে ওঠে ক্ষণে ক্ষণে। তবে বাসর রাতে দুইজনে মিলিত হওয়ার আগে নিজে’র হবু স্বামীকে ১০টি প্রশ্ন করা অবশ্যই করা উচিত, যা আপনার দাম্পত্য জীবনে সুখী হতে সহায়ক হবে। এবার চলুন জে’নে নেয়া যাক কী সেই ১০টি প্রশ্ন:

১. তুমি আমাকে কী কারণে বেশি ভালোবাসো?এই প্রশ্নটা বলতে গেলে কেউই করেন না। কিন্তু এটাই সবচাই বেশি জরুরী। কেনো ভালোবাসেন তিনি আপনাকে? প্রথম জবাব যদি হয়- “তুমি অনেক সুন্দর”। তাহলে দ্বিতীয়বার ভাবুন। একজন মানুষ অনেক সুন্দর বলে তাকে ভালোবাসা আর যাই হোক সততার পর্যায়ে প’ড়ে না। তাহলে সময়ের সাথে সৌন্দর্য চলে গেলে ভালোবাসাও তখন ফুরিয়ে যাবে।

২. তুমি আমা’র স’ঙ্গে ই পুরো লাইফটা কাটাতে চাও কেনো?সেই সাথে নিজেকেও প্রশ্ন করুন- আপনি তার সাথে পুরো জীবন কাটাতে চান কেনো? এবং তারপর মিলিয়ে দেখু’ন পরস্পরের জবাব। মা’নসিকতা মি’লছে কি?

৩. ভবিষ্যতে সন্তানের বিষয়ে তোমা’র প’রিকল্পনা কিতিনি সন্তান স’স্পর্কে কী ভাবেন, ভালোবাসার ফসল নাকি বংশ বৃ’দ্ধির হাতিয়ার? তার আজকাল সন্তান না হওয়াটাও খুব সাধারণ বিষয়। যদি সন্তান না হয় আপনাদের কোন কারণে, যদি কারণ অক্ষ’মতা থাকে, সেক্ষেত্রে তার মনোভাব কী হবে সেটা জে’নে রাখা অত্যন্ত জরুরী।

৪. তোমা’র জীবনের সবচাইতে গু’রুত্ব পূর্ণ ব্যাপারটা কী?এই ব্যাপারটাও জে’নে রাখাটা খুব বেশি প্রয়োজন। তাহলে আপনি জানতে পারবেন কোনো বিষয়গুলোকে তিনি গু’রুত্ব দেন,আর কোথায় কখনো আপনার উচিত হবে না হস্তক্ষেপ করা।

৫. একদিন আমি এমন থাকবো না দে’খতে, তখন কী হবে?বয়সের ছাপ সবার চেহারাতেই প’ড়ে। এবং ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের ক্ষেত্রে অনেকটা আগে বেশি প’ড়ে। এই প্রশ্নের সৎ উত্তর পাবেন কিনা জা’না নেই, তবে প্রশ্নটা অবশ্যই ক’রতে কখনো ভুলবেন না।

৬. যদি কখনো আমা’র বড় অসুখ হয় তখন তুমি কী করবে?এই প্রশ্নের জবাব আপনাকে সাহায্য করবে তাকে আরও ভালোভাবে বুঝতে। কোন ভুল ধারণা থাকবে না মনে।

৭. তুমি কি প্রমিজ ক’রতে পারবে যে দাম্পত্যে কখনো প্রতারণা করবে না? এই ওয়াদা কেউ র’ক্ষা ক’রতে পারবে কি পারবে না, সেটা ভবিষ্যতই বলে দেবে। কিন্তু কেউ যদি জীবনের শুরুতেই এই ওয়াদা ক’রতে গড়িমসি করেন, বাকিটা আপনি নিশ্চয়ই ধারণা করে নিতে পারবেন।

৮. জীবনের চড়াই উৎরাইতে আমি কোনো ভুল করে ফেললেও আমা’র পাশে কি থাকবে?পুরো পৃথিবী যদি কখনো বিপক্ষে চলে যায়, একজন মানুষ অন্ধভাবে বিশ্বা’স করে ও ভালোবেসে পাশে থাকবে আপনার, পৃথিবীতে এর চাইতে সুন্দর আর কিছুই হতে পারে না। এর চাইতে বেশি নি’রাপদও না।

৯. বিয়ের পরও কি আম’রা নিজ নিজ স্বপ্ন ও উদ্দেশ্য পূরণের জন্য কাজ ক’রতে পারব?বিয়ে মানেই জীবন ফুরিয়ে যাওয়া নয়। বিয়ে মানে নতুন একটি অধ্যায়ের শুরু। একটাই জীবন, সকলেরই আজ’ন্ম লালিত কিছু স্বপ্ন থাকে। সেই স্বপ্নগুলোর কী হবে সেটা আগেই জে’নে রাখা ভালো।

১০. আমাদের দাম্পত্যের ভবিষ্যৎ নিয়ে তুমি কি কখনো ভেবেছো?দাম্পত্য মানে একটা নতুন অধ্যায়। আর জীবনের এই অধ্যায়ে চাই প্রচুর প’রিকল্পনা। কোনো অগ্রিম প’রিকল্পনা ছাড়া দাম্পত্য কখনোই সফল হতে পারে না। আপনারও নিশ্চয়ই কিছু পলিকল্পনা আছে? তাহলে আগেই জে’নে রাখু’ন হবু স্বামীর প’রিকল্পনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *