‘শিক্ষক’ মাশরাফির ‘ছাত্র’ তাসকিন

নেতা হিসেবে বরাবরই অন্যদের চেয়ে এগিয়ে মাশরাফি মুর্তজা। অধিনায়ক মাশরাফি সতীর্থদের পাশে ছিলেন সবসময়। তবে তাসকিন আহমেদের সঙ্গে তার সম্পর্কটা একটু বেশিই গাঢ়। আদর করে তাকে ‘হিরো’ বলেও ডাকতেন। মাশরাফি ও তাসকিনের রসায়ন বেশ পুরনো। ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অবৈধ বোলিং অ্যাকশনে তাসকিন যখন বাদ পড়েছিলেন, সংবাদ সম্মেলনে সতীর্থের জন্য অঝরে কেঁদেছিলেন মাশরাফি। ২০১৫ বিশ্বকাপে তাসকিন ও মাশরাফি উইকেট উদযাপন ‘ম্যাশকিন’ এখনও সবার চোখে ভাসে। সেই দুজনকে এবার পাওয়া গেলো অন্যরকমভাবে। যেখানে ‘শিক্ষক’ মাশরফি, আর ‘ছাত্র’ তাসকিন।

২০২০ সালে জিম্বাবুয়ের সিরিজের পর জাতীয় দলে খেলা হয়নি মাশরাফির। নির্বাচকরা ফিটনেস ইস্যুতে দলেও রাখেননি মাশরাফিকে। সব মিলিয়ে সামনে খেলার সুযোগ পাওয়াটা এককথায় কঠিন। আজ (বৃহস্পতিবার) হুট করেই মিরপুরে গিয়েছিলেন সাবেক এই অধিনায়ক। এসেই ‘শিক্ষকের’ ভূমিকায় অবতীর্ণ। ‘ছাত্র’ তার প্রিয় সতীর্থ তাসকিন।

মাশরাফির সঙ্গে স্লোয়ার নিয়ে কাজ করেছেন তাসকিন। অনুশীলন শেষে সংবাদমাধ্যমকে তাসকিন সেই কথাই জানালেন, “ভাইয়াকে (মাশরাফি) বলেছিলাম একদিন সময় দেওয়ার জন্য। কারণ আমার আসলে পেস, সুইং এইগুলো উন্নতি হচ্ছে। কিন্তু আমি স্লোয়ারের দিক থেকে একটু পিছিয়ে। স্লোয়ার বল উন্নতি করতে চাই। ভাইয়াকে বলতাম। ভাইয়া এসে কিছু গ্রিপ দেখালো, বললেন, ‘একেকজনের একেক রকম অ্যাকশন হয়। এইগুলো একটু চেষ্টা করে দেখতে পারো।’ আমার কাছে ভালো লাগে, এমন কিছু কাটারের গ্রুপ দেখিয়েছেন। আশা করি এইগুলো প্রয়োগ করলে ফল হবে।”

কী ধরনের কাজ, সেটিও খেলাসা করেছেন তাসকিন, “মূলত দুই-তিনটা গ্রিপ দেখিয়েছেন। আর বলেছেন, একসঙ্গে এত কিছু নিয়ে কাজ করা যাবে না। যেহেতু সামনেই অনেক খেলা। আপাতত কাটার ট্রাই করতে বলেছেন। তো ওইটাই দেখালেন। বললেন, ‘যদি ভালো লাগে এটা কন্টিনিউ করতে পারো। এটা আয়ত্তে এলে আরেকটা।”

ভারতের মেন্টর হয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলের সঙ্গে যাচ্ছেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। মাশরাফিকে যদিও মেন্টরের দায়িত্ব দেয়নি বিসিবি। তারপরও নিজ থেকেই তাসকিনের বোলিং নিয়ে কাজ করলেন বাংলাদেশের সফলতম অধিনায়ক। মাশরাফিকে কিছু সময়ের জন্য পেয়ে দারুণ খুশি তাসকিন, ‘ব্যস্ততার মাঝে মাশরাফি ভাই আমাকে সময় দিয়েছে, এটা অনেক। আমার স্লোয়ার অন্যদের থেকে একটু উইক। কাজেই আজ যে গ্রিপ দেখিয়েছে এইগুলো আগেরগুলোর থেকে ভিন্ন।’

মাশরাফির কাছ থেকে স্লোয়ার শিখে রপ্ত করতে পারলে দারুণ হবে বলে মনে করছেন এই পেসার, ‘আমার শক্তি যেটা পেস বাউন্স এটার সঙ্গে এটা যোগ হলে আরেকটা বিকল্প হতে পারে। মাশরাফি ভাই বলেছেন যদি ভালো লাগে তাহলে চেষ্টা করতে। হয়তো একটু সময় লাগবে। যদি শিখতে পারি আমার মনে হয় ভালো হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *