সাকিবের কাছে হেরে গেলেন মোস্তাফিজ

আইপিএলে কাল মুখোমুখি হয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের দুই সতীর্থ সাকিব আল হাসান ও মোস্তাফিজুর রহমান। ম্যাচটা একপেশে করে দিয়ে অনায়াসে জিতেছে সাকিবের কলকাতা নাইটরাইডার্স (১৭১/৪)। শারজায় তারা ৮৬ রানের বড়সড় ব্যবধানে হারিয়েছে মোস্তাফিজের রাজস্থান রয়্যালসকে (৮৫/১০)।

সোজা কথা, সাকিবের কাছে হেরে গেছেন মোস্তাফিজ। ব্যাট হাতে নামার সুযোগ পাননি সাকিব। এই জয়ে প্লে-অফের আশা বেঁচে রইল কলকাতার। শুবমান গিল (৫৬) ও ভেঙ্কটেশ আয়ারের (৩৮) উদ্বোধনী জুটিতে এক উইকেটে ৭৯ তোলা কলকাতার বড় সংগ্রহে রাহুল ত্রিপাথির ২১ এবং দিনেশ কার্তিক (১৪*) ও অধিনায়ক এউইন মরগানের (১৩*) ঈষৎ অবদান রয়েছে। মোস্তাফিজ চার ওভারে ৩১ রান দিয়ে উইকেটশূন্য থাকেন।

১৭২ তাড়া করতে নামা রাজস্থানকে শুরুতেই বড় ধাক্কা দেন সাকিব যশ্বসী জাইসওয়ালকে শূন্য রানে বোল্ড করে। নিজের প্রথম ওভারে সাকিব মাত্র এক রান দিয়ে এক উইকেট নেন। রাজস্থান নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে শেষমেশ অলআউট হয় ৮৫ রানে। স্কোর বোর্ডে কোনো রান যোগ করার আগেই প্রথম উইকেট হারায় তারা। এরপর এক রানে দুই, ১২ রানে তিন, ১৩ রানে চার এবং ৩৩ রানে পাঁচ উইকেট হারায় তারা। লেন ফিলিপসকে ফিরিয়ে দিয়ে রাজস্থানের ইনিংসের অর্ধেক মুড়িয়ে দেন মাভি। এরপরও থামেনি রাজস্থানের উইকেট পতন। ১৪ ওভারে তারা ৭৫ রান তুলতেই হারায় আট উইকেট।

৮৫ রানে শেষ হয় রাজস্থানের ইনিংস। ৩৬ বলে সর্বোচ্চ ৪৪ রান করেন রাহুল তেওয়াতিয়া। ১৮ রান করেন শিভম দুবে। কলকাতার সবচেয়ে সফল বোলার শিভম মাভি চার উইকেট নেন ২১ রান দিয়ে। তিনটি উইকেট পান লকি ফার্গুসন। চেন্নাই সুপার কিংসকে হারিয়ে কলকাতা নাইটরাইডার্সের কাজ কঠিন করে দিল পাঞ্জাব কিংস। বৃহস্পতিবার আইপিএলে দিনের প্রথম ম্যাচে পাঞ্জাবকে শুধু জিতলেই হতো না, রান রেটও বাড়িয়ে রাখতে হতো। চেন্নাই সুপার কিংসের বিরুদ্ধে সাত ওভার বাকি থাকতে ছয় উইকেটে জিতে সেই লক্ষ্যে অনেকটাই সফল পাঞ্জাব।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *