তুকমা দিয়ে আর ইতিহাস গড়া হলো না কোহলি বাহিনীর

সিরিজের প্রথম টেস্টে সেঞ্চুরিয়নে দারুণ জয় দিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্ট সিরিজ শুরু করেছিল ভারত। প্রথমবার দেশটির মাটিতে লঙ্গার ভার্সনে সিরিজ জয়ের হাতছানি ছিল তাদের সামনে। জোহানেসবার্গেই জিতে যেতে পারত তারা, কিন্তু ডিন এলগারের বীরোচিত ইনিংসে তাদের জয় ছিনিয়ে নেয় স্বাগতিকরা। কেপটাউনের নিউ ল্যান্ডসে জমল না ভারতের লড়াই, গড়া হলো না ইতিহাস। ৭ উইকেটে তাদের হারিয়ে ২-১ এ সিরিজ জিতল প্রোটিয়ারা।

শুক্রবার চতুর্থ দিন দক্ষিণ আফ্রিকার জয়ের জন্য দরকার ছিল ১১১ রান। ২ উইকেটে ১০১ রানে খেলতে নেমে আর মাত্র একটি উইকেট হারায় স্বাগতিকরা। লাঞ্চের পরপর ৩ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্য ছোঁয় এলগারের দল। ৬৫ বলে হাফ সেঞ্চুরি করা কিগান পিটারসেন ইনিংস সেরা ৮২ রান করেন। দিনের একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে তিনি আউট হন শার্দুল ঠাকুরের বলে। রাসি ফন ডার ডুসেন ও টেম্বা বাভুমা ৫৭ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটিতে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন।

টার্গেট ছিল ২১২ রানের। তৃতীয় দিন লক্ষ্যে নেমে এইডেন মার্করামকে (১৬) শুরুতে হারানোর পর এলগারের (৩০) উইকেটে দিনের শেষ হয়। ভাঙে পিটারসেনের সঙ্গে তার ৭৮ রানের জুটি। পিটারসেন ৪৮ রানে অপরাজিত থেকে চতুর্থ দিন শুরু করেন। প্রথম ইনিংসের পর শেষটিতেও হাফ সেঞ্চুরি করেন তিনি। তবে সেটাকে তিন অঙ্কের ঘরে নিতে পারলে না শার্দুলের কাছে বোল্ড হয়ে। ফন ডার ডুসেনের সঙ্গে তার জুটি ছিল ৫৪ রানের।

বাকি সময়ে কোনো নাটকীয় প্রত্যাবর্তনের ইঙ্গিত দিতে পারেনি ভারত। ফন ডার ডুসেন ৪১ ও বাভুমা ৩২ রানে অপরাজিত থেকে ম্যাচ শেষ করে আসেন। ৩ উইকেটে ২১২ রান করে দক্ষিণ আফ্রিকা। ভারতের সফর এখানেই শেষ হচ্ছে না। আগামী ১৯ জানুয়ারি পার্লে শুরু হচ্ছে ওয়ানডে সিরিজ। একই মাঠে ২১ জানুয়ারি হবে দ্বিতীয় ওয়ানডে। সিরিজ শেষ হবে ২৩ জানুয়ারি কেপটাউনে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ভারত: প্রথম ইনিংস ২২৩, দ্বিতীয় ইনিংস ১৯৮

দক্ষিণ আফ্রিকা: প্রথম ইনিংস ২১০, দ্বিতীয় ইনিংস ২১২/৩

ফল: দক্ষিণ আফ্রিকা ৭ উইকেটে জয়ী। ও ২-১ এ দক্ষিণ আফ্রিকার জয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *