দারুন সুখবরঃ আগামী আইপিএলে জায়গা করে নিতে পারেন ৫ পাকিস্তানি ক্রিকেটার

আইপিএল বিশ্বের অন্যতম সেরা ক্রিকেট লিগ। বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা এবং এমএস ধোনি সহ সমস্ত সেরা ভারতীয় খেলোয়াড় ছাড়াও বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় খেলোয়াড়রা এতে খেলেন। ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে উত্তেজনার কারণে পাকিস্তানের কোন খেলোয়াড় আইপিএলে খেলার সুযোগ পান না।

যদিও পাকিস্তানি খেলোয়াড়রাও ২০০৮ সালে আইপিএলের প্রথম মরশুমে আইপিএল খেলেছিল, যদিও এরপর তারা কখনই এই লিগের খেলেননি। আইপিএল বাদে পাকিস্তানি খেলোয়াড়রা বিশ্বের অন্যান্য লিগে খেলে এবং

তাদের পারফরমেন্সও চমৎকার। এটি মাথায় রেখে, আজ আমরা এমন পাঁচজন পাকিস্তানি খেলোয়াড় সম্পর্কে আলোচনা করবো যারা আইপিএলের আগামী মরশুমে যে কোন দলে জায়গা করে নিতে পারেন।

মোহাম্মদ হাফিজ

মোহাম্মদ হাফিজ এর আগেও আইপিএল খেলেছেন। ২০০৮ সালে তিনি কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলে মাত্র কয়েকটি ম্যাচ খেলে ৬৪ রান করেন। একইসঙ্গে সেবার ৬.৮ ইকোনমি রেটে মোট ২ উইকেটও তুলে নেন তিনি।

তিনি পাকিস্তানের হয়ে মোট ১০৬টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন। নিজের অলরাউন্ড পারফরমেন্স দিয়ে পাকিস্তান দলকে অনেক ম্যাচে জয় এনে দিয়েছেন এই খেলোয়াড়। টি-টোয়েন্টিতে তিনি ২৭.১৪ গড়ে মোট ২৩৮৮ রান করেছেন। একই সময়ে, তিনি ৬.৫৬ ইকোনমি রেটে মোট ৫৫টি উইকেট নিয়েছেন। আইপিএলের মতো বড় টুর্নামেন্টে এমন একজন অলরাউন্ডারকে সবাই কিনতে চাইবে।

মোহাম্মদ আমির

মোহাম্মদ আমির এমন একজন বোলার যিনি ওপেনিং এবং শেষ ওভারেও সেরা বোলিং দিতে পারেন। আমির ৫০ টি-টোয়েন্টিতে ৫৯টি উইকেট নিয়েছেন এবং সেই তালিকায় রয়েছেন বিশ্বের তাবড় তাবড় ব্যাটসম্যানরা।

এর পাশাপাশি আমির টি-টোয়েন্টি ব্লাস্ট ও বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে খেলে এই ফর্ম্যাটে প্রচুর অভিজ্ঞতা অর্জন করেছেন। যদি আইপিএলে এই ফাস্ট বোলারের নামও আসে, তবে আইপিএলের ১০ টি দলই তাদের পিছনে দৌড়াতে পারে, কারণ তারা নতুন বলে তাদের দুর্দান্ত সুইংয়ের জন্য পরিচিত। তিনি আইপিএল খেললে সত্যিই ভারতীয় ক্রিকেট মহলে হইচই পড়ে যাবে।

শাহীন আফ্রিদি

এই মুহুর্তে পাকিস্তান দলের তারকা ফাস্ট বোলার হলেন শাহীন আফ্রিদি। এই খেলোয়াড়টি খুব অল্প সময়ে নিজের জন্য একটি বড় নাম করে নিয়েছেন। সুইং ও ইয়র্কার বলের জন্য বিখ্যাত এই ফাস্ট বোলার। যদি তার নাম আইপিএল নিলামেও থাকে,

তবে তিনি কোটি কোটি টাকা পাবেন তা নিশ্চিত। এর কারণ হল তিনি তার ছোট কেরিয়ারে দুর্দান্ত পরিসংখ্যানের মালিক। শাহীন আফ্রিদি পাকিস্তানের হয়ে এখন পর্যন্ত ৩২টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন, যার মধ্যে তিনি ৬২টি উইকেট নিয়েছেন। এর পাশাপাশি, তিনি ৪০টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে, তিনি ৭.৭৫ গড়ে ৪৭টি উইকেটের মালিক। তাকে পাওয়ার জন্য যে কোন দল ঝাাঁপাবে।

হাসান আলী

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে প্রতিটি দলই এমন বোলার খুঁজছে যে শেষ ওভারে সেরাটা দিতে পারে। হাসান আলী এই ফর্ম্যাটের একজন ধারাবাহিক পারফর্মার। দেশের জার্সি গায়ে কিংবা পাকিস্তান সুপের লিগেও দুর্দান্ত পারফরমেন্স করে দেখিয়েছেন তিনি।

তার সুনির্দিষ্ট বোলিং লাইন ও ইয়র্কার তাকে টি ২০ ফর্মাটের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়ে পরিণত করেছে। এই বোলিং ছাড়াও হাসান আলী ব্যাটিং করার সময় লোয়ার অর্ডারে নেমে তার দলের জন্য কিছু বিস্ফোরক ইনিংস খেলতে পারেন এবং কোন দলের জন্য এর চেয়ে ভালো বিকল্প আর হতে পারে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published.